,


ভোলায় শিমের পর্যাপ্ত বাজার মূল্য না পাওয়ায় হতাশ চাষীরা

ভোলায় শিমের পর্যাপ্ত বাজার মূল্য না পাওয়ায় হতাশ চাষীরা

ভোলা প্রতিনিধি

শিমের পর্যাপ্ত বাজার মূল্য পাচ্ছেনা ভোলার শিম চাষীরা। কোন ধরনের রোগ বালাই ও পোকা-মাকরের আক্রমণ না থাকায় ভোলায় এবছর শিমের বাম্পার ফলন হয়েছে। কিন্তু বর্তমান বাজারে শিমের দাম কম থাকায় লাভ নিয়ে শঙ্কায় পড়েছে চাষীরা।

চাষীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ভোলায় গত কয়েক বছর ধরে শিমের আবাদ ভালো হওয়ায় এবছরও চাষীরা অধিক আগ্রহী হয়ে শিম চাষ শুরু করেন। ফসলের ক্ষেতে শিমের সমারোহ হেক্টরপ্রতি আবার বেশি হওয়ায় উৎপাদন খরচ পুষিয়ে লাভের আশায় ভোলার শিম চাষীরা।

এ বিষয়ে শিম চাষী মনোয়ার মিয়া বলেন, এবছর শিম ক্ষেতে কোন পোকার আক্রমণ নেই, ফলনও গত কয়েক বছরের ন্যায় ভালো হয়েছে। তবে স্থানীয় বাজার শিমের দাম অনেক কম।

এদিকে মনপুরা উপজেলার রহমানপুর গ্রামের শিম চাষী আবদুল আলী জানায়, প্রায় এক একর জমি মহাজনের নিকট থেকে লগ্নি নিয়ে এক লাখ টাকা খরচ করে শিম চাষ করেছেন তিনি। ফলন অনেক বেশি হয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত মাত্র চল্লিশ হাজার টাকা শিম বিক্রি করেছেন তিনি। শিমের বাজার মূল্য ভাল না হওয়ায় তিনি হতাশায় ভুগছেন।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গত বছর ভোলায় শিমের আবাদ হয়েছিল ১০৫৫ হেক্টর জমিতে আর উৎপাদন হয়েছে প্রায় ২৩ হাজার ১০০ মেট্রিকটন। এ বছর আবাদ হয়েছে ১২০৫ হেক্টর জমিতে। উৎপাদন ও গত বছরের চেয়েও বেশি।

তিনি আরো বলেন, মাটি ও আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় শিমের বাম্পার ফলন হয়েছে। এছাড়া মাঠ পর্যায়ে কৃষি কর্মকর্তারা চাষীদের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ ও সঠিক পরামর্শ দেওয়ার ফলে কোন ধরনের পোঁকামাকরের আক্রমন হয়নি।

এদিকে ভোলার শিম চাষীরা তাদের উৎপাদিত শিমের ন্যায্য মূল্য দাবী করেন সরকারের কাছে। ভোলা উৎপাদিত শিম জেলার চাহিদা মিটিয়ে ঢাকা, বরিশাল, খুলনা, চট্টগ্রাম সহ বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করা হয়।

Leave a Reply


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: