,


পাবনায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা জনজীবনে হাঁসফাঁস

পাবনায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা জনজীবনে হাঁসফাঁস

পাবনা প্রতিনিধিঃ সপ্তাহ ব্যপী চলমান দাবদাহে পুড়ছে প্রকৃতি, সূর্যের প্রচন্ড তাপ আর বাতাস যেনো আগুনে ছোঁয়া। সকাল থেকেই সূর্য তেঁতে থাকে এবং বেলা বাড়ার সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে তাপমাত্রাও বাড়তে থাকে।

এমন একটি অবস্থায় প্রাণীকূল ও জনজীবনে উঠেছে চরম হাঁসফাঁস। জরুরী কাজ ছাড়া ঘরের বাহিরে যাচ্ছে না মানুষ।

পাবনার ঈশ্বরদী আবহাওয়া অফসি সূত্রে জানা যায় গত সপ্তাহ থেকে শুরু হওয়া তাপপ্রবাহ সোমবার বেলা তিনটায় পাবনার ঈশ্বরদীতে তাপমাত্রা রেকের্ড করা হয় সর্বোচ্চ ৪২ দশমকি শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস যা এ বছররে সর্বোচ্চ।

আরও কিছুদিন এ অবস্থা বিরাজমান থাকতে পারে। আগামী দুই তিনদিন বৃষ্টির সম্ভাবনাও কম। তবে সোমবার বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘন্টায় ১৫ কিঃমিঃ।

এদিকে, চলমান দাবদাহের কারণে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। সবচেেয় কষ্টরে অন্ত নেই খেটে খাওয়া দিনমজুরীদের।রৌদ্রের উত্তাপে কাজকর্ম জীবীকা নির্বাহ করা অনকে কষ্টকর হয়ে গেছে।

রিক্সাচালক মজনু জানায় সংসারের আহার সংগ্রহের জন্য রোদ কি আর ঝর বাদল কি! কাজ না করলে অনাহারে থাকতে হবে। তারা এই তাপদাহে গরমে লেবুর সরবত, আখের রস, ডাবের পানি পান করে একটু স্বস্তি পেতে চান।

শহরের ইট কাঠরে খাচার ভিতর থাকা গৃহিনীরা গরমে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। ফ্যানের গরম বাতাস আর ঘন ঘন লোডশেডিং কষ্টের মাত্রা আরও বাড়ীয়ে দিয়ছে। গত এক সপ্তাহে পাবনা শহররে লোডশেডিং গত কয়েক বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশী দেখা দিয়েছে।

বিদ্যুৎ অফিসে লোডশেডিং এর ব্যাপারে বলেছেন, প্রচন্ড তাবদাহে আর টেকনিক্যাল সমস্যার কারণে লোডশেডিং বেশী হচ্ছে। লোডশেডিং এর কারণে দৈনন্দিন জীবন যাপনে অনেক সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। সমস্যা হচ্ছে সংবাদ আদান-প্রদানরে কাজেও।

পাবনা স্থানীয় খবরের কাগজ মেকিং এর সময় ঘন ঘন বিদ্যুতিক লোডশেডিং এর কারণে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে অপারেটরদের। এ দিকে চলমান তাপদাহ অব্যাহত থাকার কারণে অসুস্থ্য হয়ে পড়ছে শিশু ও বয়স্করা।

হাসপাতাল সুত্রে জানা যায় গত কয়েক দিনের তাপপ্রবাহের কারণে হিটস্টোকের রোগীর সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে। রোগীদের মধ্যে বয়স্করা বেশী। বিশেষজ্ঞ ডা. গরমে বেশি বেশি বিশুদ্ধ পানি পান করার পরামর্শ দিয়েছেন।

বেশী করে ফলের রস খেতে বলেছে পাশাপাশি রাস্তায় শরবত বা কমল পানীয় খাবার আগে যাচাই করে নিতে বলেছেন। কারণ এসব অস্বাস্থ্যকর পানি পান করায় অসুস্থ হতে পারে।

পাবনা শহরে অবস্থিত জুবলী ট্যাংক পুকুরে গরম থেকে স্বস্তি পাওয়ার আশায় ছেলেবুড়ো নেমে পড়েছে। শিশুরা জলকেলীতে মেতেছে একটু স্বস্তি পাওয়ার আশায়।

Leave a Reply


এই বিভাগের আরো

সর্বশেষ

%d bloggers like this: