,


ধোনির!আরও ২ বছর খেলা উচিত

ধোনির!আরও ২ বছর খেলা উচিত

স্পোর্টস ডেস্কঃ উইকেট কিপিংয়ে তাঁর স্কিল ক্রিকেটপ্রেমীদের বিস্মিত করে। আর ব্যাটিংয়ে তাঁর নামের পাশে রয়েছে ফিনিশার খেতাব। ৩৭ বছর বয়সে এসে সময়টা ভালো যাচ্ছে না মহেন্দ্র সিং ধোনির। তবে শ্রীলঙ্কান পেসার লাসিথ মালিঙ্গা মনে করেন ধোনি আরও এক-দুই বছর খেলার সামর্থ্য রাখেন। ।

ধোনি আর সেই আগের ‘ধোনি’ নেই! ব্যাটিং বা উইকেটের পেছনে একটু নড় বড়ে দেখা গেলেই ধোনিকে নিয়ে শুরু হয় সমালোচনা। সমালোচকেরা তাঁর ৩৭ বছর বয়সের দিকেই ইঙ্গিত করে থাকেন। সুযোগ পেলে বলেও দেয় এই বয়সে ব্যাট-গ্লাভস তুলে রাখাই ভালো। কিন্তু অন্তত একজন আছেন, যিনি মনে করেন ধোনির আরও দুই বছর খেলার সামর্থ্য রাখেন। ২ বছর না হোক এক বছর তো অবশ্যই। ধোনির সেই শুভাকাঙ্ক্ষী সাধারণ কেউ নন, শ্রীলঙ্কার অভিজ্ঞ পেসার লাসিথ মালিঙ্গা।

এবারের বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত নামের প্রতি তেমন সুবিচার করতে পারেননি ধোনি। সাত ম্যাচে তাঁর ব্যাট থেকে এসেছে ২২৩ রান। এর মধ্যে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ঘাম দিয়ে জ্বর ছাড়া জয়ের ম্যাচে ধোনির ধীর গতির ব্যাটিংয়ের ধরন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন স্বয়ং শচীন টেন্ডুলকার। আফগানদের বিপক্ষে ২২৪ রানের লো স্কোরিং ম্যাচে ৫ নম্বরে ক্রিজে আসা ধোনি ৫২ বলে করেছিলেন ২৮ রান, ধোনির মতো অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানের নামের সঙ্গে যা বড্ড বেমানান।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষেও তাঁর ব্যাটিংয়ে দেখা যায়নি জয়ের নেশা। ৩৩৭ রানের জবাবে ভারত শেষ অবধি ৫ উইকেট হাতে রেখে থামে ৩০৬ রানে। হাতে ৫ উইকেট থাকা সত্ত্বেও ইংলিশ বোলারদের ওপর মারমুখী হননি ধোনি। ফলে তাঁর ফিনিশার খেতাব নিয়েই প্রশ্ন ওঠে গিয়েছে।

খারাপ সময়ে বিশ্ব সেরা একজনকে পাশে পাচ্ছেন ভারতের সাবেক অধিনায়ক। ধোনিকে কমপক্ষে আরও এক বছর মাঠে দেখতে চান মালিঙ্গা, ‘আমি মনে করি ধোনির আরও এক বা দুই বছর খেলা উচিত। শেষ দশ বছরে দেখা সেরা ফিনিশার। আমি মনে করি না ভবিষ্যতে তাঁকে কেউ ছাড়িয়ে যেতে পারবে। কঠিন মুহূর্তে তরুণদের সঙ্গে নিয়ে ম্যাচ নিয়ন্ত্রণে রাখার অভিজ্ঞতা আছে। অধিনায়ক ধোনির অধীনে ভারতের ভালো করার রেকর্ড আছে। আমি মনে করি এ জন্যই ভারত সফল দল। তারা এই টুর্নামেন্টে যে কোনো দলকে হারাতে পারে।’ বৃহস্পতিবার ভারতের বিপক্ষে নিয়ম রক্ষার ম্যাচে মাঠে নামবে শ্রীলঙ্কা। এর আগেই ধোনিকে প্রশংসায় ভাসালেন প্রতিপক্ষ দলের সেরা বোলার।

শুধু উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান ধোনি নয় ভারতের দুই পেসার যশপ্রীত বুমরা ও মোহাম্মদ শামিরও প্রশংসা করেছেন মালিঙ্গা। বুমরার ৫ উইকেট পাওয়ার দিকে তাকিয়ে আছেন লঙ্কান এই অভিজ্ঞ পেসার, ‘বুমরা ও শামি নিখুঁত বোলার। শামি ইতিমধ্যে ম্যাচে ৫ উইকেট পেয়েছে। যশপ্রীত ডেথ ওভারের জন্য খুবই অভিজ্ঞ। সে জানে কীভাবে কঠিন সময়ে বোলিং করতে হয়। বিশ্বকাপে সে খুবই ভালো বোলিং করছে। আমি এখনো অপেক্ষা করছি বিশ্বকাপে তাঁর ৫ উইকেট দেখার। আমি মনে করি সেমিফাইনালে সে যদি ৫ উইকেট পায়, ভারত অবশ্যই ফাইনালে খেলবে।’

Leave a Reply


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: