,


‘যা দেখছেন, আমি তা নই’
‘যা দেখছেন, আমি তা নই’

‘যা দেখছেন, আমি তা নই’

ডেস্ক রিপোর্টারঃ ‘অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেম’ ছবির মধ্য দিয়ে শেষ হলো মার্ভেলের জনপ্রিয় চরিত্র ‘আয়রন ম্যান’-এর যাত্রা। কেবল ‘অ্যাভেঞ্জার্স’ আর ‘অ্যাভেঞ্জার্স ইনফিনিটি ওয়ার’—এই দুটি ছবি দিয়ে তিনি আয় করেছেন যথাক্রমে ৪২৫ ও ৬৩৭ কোটি টাকা! আর সর্বশেষ ‘অ্যাভেঞ্জার্স এন্ডগেম’ দিয়ে যে তিনি কত আয় করেছেন, তাঁর কোনো হিসাব নেই। কিন্তু সবকিছুর ঊর্ধ্বে তাঁকে মানুষ বলে মনে রাখতে বাধ্য হবে কেবল একটা সংলাপ দিয়ে।

‘আই অ্যাম আয়রন ম্যান’ এই সংলাপের পর তাঁর পরিচয় নতুন করে দেওয়ার প্রয়োজন হয় না। এক সংলাপে ডুবতে বসা ক্যারিয়ার এবং মার্ভেল সিনেমাটিক ইউনিভার্স দুই-ই একসঙ্গে দেখেছে সাফল্যের মুখ। তাঁর নাম রবার্ট ডাউনি জুনিয়র। এর চেয়ে বড় করে পরিচয় দেওয়ার মতো কিছু নেই। কারও কাছে তিনি টনি স্টার্ক, আবার কারও কাছে শার্লক হোমস।

অথচ একসময় তিনি ছিলেন চূড়ান্ত হতাশাগ্রস্ত। ছয় বছর বয়সে নিয়মিত হেরোইন সেবন করা ডাউনি আট বছরের মধ্যেই হয়ে যান পুরোপুরি মাদকাসক্ত। কিন্তু সেখান থেকে তিনি বর্তমানে হলিউডের সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক পাওয়া অভিনয়শিল্পীদের একজন। একজন টনি স্টার্ক কিংবা রবার্ট ডাউনি জুনিয়রের উত্থান হয়েছিল মার্ভেলের অমতে। টনি স্টার্ক বা আয়রন ম্যান চরিত্রের জন্য মার্ভেল বলেছিল ব্র্যাড পিট কিংবা টম ক্রুজের কাছে যেতে। কিন্তু এই চরিত্রের জন্য কেবল রবার্ট ডাউনি জুনিয়রকেই পছন্দ ছিল পরিচালক জন ফ্যাভ্রুয়ের।

এই চরিত্র দিয়েই ঘুরে যায় রবার্ট ডাউনি জুনিয়রের জীবনের মোড়। আর এখন তিনি মার্ভেলের নিশ্চিন্ত ভরসার পাত্র। তাই দ্য হলিউড রিপোর্টারকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ঘুরেফিরে সামনে আসে আয়রন ম্যানের কথা। আর আলাপের শুরুতেই রবার্ট ডাউনি জুনিয়র সাফ জানিয়ে দেন, ‘আমি কোনো সুপারহিরো নই। বড় পর্দায় যে রবার্ট ডাউনি জুনিয়রকে সবাই দেখেন, বাস্তবের রবার্ট ডাউনি জুনিয়রের সঙ্গে তাঁর বিস্তর ফারাক।’

ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে এই অভিনেতা থিয়েটার করতেন, তখন কে যেন তাঁকে একটা সহজ উপদেশ দিয়েছিল। বাকি জীবন সেই উপদেশ অক্ষরে অক্ষরে মেনেছেন এই অভিনেতা। থিয়েটারের সেই মানুষটা রবার্ট ডাউনি জুনিয়রকে বলেন, অভিনয়শিল্পী হিসেবে চরিত্র থেকে নিজের শৈল্পিক দূরত্ব বজায় রাখতে। অর্থাৎ মঞ্চ থেকে নামার পর বা কাট শব্দের পর তিনি যেন আবার রবার্ট ডাউনি জুনিয়র হয়ে যান।

তাই তো এত দিন পর তিনি বলতে পারছেন, ‘আমি মোটেই আমার করা চরিত্র নই। আমি স্টুডিওতে যা করি, তা নই আমি। বাচ্চারা সবাই আমার চরিত্রটা হতে চায়। আর বলে, তারা নাকি আমার মতো হতে চায়। কিন্তু আমি আর আমার চরিত্র তো এক নই। আমি কোনো সুপারহিরো নই।’

৫৪ বছর বয়সী এই তারকা মনে করেন, সব মানুষের, সব প্রতিষ্ঠানের একটা ভরসার জায়গা থাকে। নিজেকে তিনি এখনো নিজেকে একজন শিশু ভাবেন। এমন এক শিশু, যাকে মার্ভেল চোখ বন্ধ করে ভরসা করতে পারে। রবার্ট ডাউনি জুনিয়রের সর্বশেষ ছবি ‘অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেম’এখন পর্যন্ত আয় করেছে ২৩ হাজার ৭৩৬ কোটি টাকা। বিশ্বের সবচেয়ে অর্থ উপার্জনকারী ছবি ‘অ্যাভাটার’-এর পর এটির অবস্থান। ‘আয়রন ম্যান’-এর যাত্রা তো শেষ হলো। দেখা যাক, এবার রবার্ট ডাউনি জুনিয়র কোন দিকে যাত্রা করেন।

Leave a Reply


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: