,


কাকে চুমু খাচ্ছেন ব্রি লারসন?
কাকে চুমু খাচ্ছেন ব্রি লারসন?

কাকে চুমু খাচ্ছেন ব্রি লারসন?

ডেস্ক রিপোর্টারঃ ‘আমার প্রতিদিন নতুন নতুন বিষয় শিখতে ভালো লাগে। কিন্তু আমি ক্লাসে বসে থাকতে পারি না।’ তাই তো কলেজ পেরোনোর আগেই ব্রি লারসন প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাকে টা টা বাই বাই বলে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন অভিনয়ে। আর মাত্র ২৬ বছর বয়েসে হাতে তুলেছেন সেরা অভিনেত্রীর অস্কার।

বড় পর্দায় ২০১৫ সালে তিনি একজন অসহায় আর সাহসী মা হয়েছিলেন। তিনি পাঁচ বছর বয়সী সন্তান জ্যাককে নিয়ে একটা বদ্ধ ঘরের ভেতর সাত বছর জীবন কাটিয়েছেন। সেই সন্তানের কাছে ওই ঘরটুকুই পৃথিবী। আর ঘরের একটা টেলিভিশন হলো সেই পৃথিবীর বাইরে সব। সে জন্মের পর থেকে এই ঘরেই জীবন কাটিয়ে দিচ্ছে। এই মায়ের চরিত্র বদলে দিয়েছিল ব্রি লারসনকে। হঠাৎ যাকে কখনো সেভাবে খেয়াল করে দেখা হয়নি, তাঁর ওপর গিয়ে পড়েছে পৃথিবীর সব আলো।

এরপর সেই মা হয়ে উঠলেন মারভেল সিনেমাটিক ইউনিভার্সের প্রথম নারী সুপারহিরো, ক্যাপ্টেন মার্ভেল। ছবিতে তাঁকে দেখা যাবে একটা গ্রহকে সরিয়ে আরেক জায়গায় নিয়ে যেতে। বাস্তবে তাই তিনি একটা আস্ত জিপগাড়ি পিঠ দিয়ে ঠেলে নিয়ে গেছেন অনেকটা পথ। আর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সেই ভিডিও শেয়ার করেছেন। নারীকেন্দ্রিক চলচ্চিত্র বিলিয়ন ডলার আয় করতে পারে না, এই ছবি দিয়ে তিনি সেই অদৃশ্য কাচের ছাদ ভাঙতে পেরেছিলেন। আর তাঁর সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেম’-এর কথা না বললেই নয়। এই ছবি এই মুহূর্তে বিশ্বের সবচেয়ে অর্থ উপার্জনকারী চলচ্চিত্র।

হঠাৎ একটা নাম গণমাধ্যমে চর্চা ও আলোচনার শীর্ষে। সেই নাম এলিজা অ্যালেন-ব্লিটস। পিপলের প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, ঘটনা গত মঙ্গলবারের। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার ক্যালাবাসাস শহরে পাপারাজ্জিরা একটা ছবি তুলেছেন। ছবিতে ব্রি লারসন আর এলিজা অ্যালেন-ব্লিটস নামের ওই ব্যক্তি গভীরভাবে একজন আরেকজনকে চুমু খাচ্ছেন। তাঁরা এক সুপারমার্কেটে কেনাকাটা করতে গিয়েছিলেন। তারই এক ফাঁকে দুজন দুজনকে ভালোবেসে জড়িয়ে ধরে চুমু খেলেন।

এ সময় ব্রি লারসনের পরনে ছিল কমলা রঙের ফুলেল ফ্রক আর এলিজার পরনে সাধারণ সাদা টি-শার্ট ও কালো জিনস। এখন মনে প্রশ্ন জাগতেই পারে, কে এই এলিজা? কী তাঁর পরিচয়?

এলিজা অ্যালান-ব্লিটস পেশায় একজন অভিনয়শিল্পী ও নির্মাতা। মার্কিন ক্রাইম ড্রামা ‘দ্য শিল্ড’ (২০০৩)-এ তাঁকে অতিথি চরিত্রে দেখা গেছে। তা ছাড়া ‘ইন দিস লাইফ’ (২০১৩), ‘ফুল রাইড’ (২০১৪), ‘শি ইজ ফানি দ্যাট ওয়ে’ (২০১৪), ‘এনভয়’ (২০১৪), ‘ব্রেকআপ মুভিং সার্ভিস’ (২০১৪), ‘মায়ামি ডেড কান্ট্রি’ (২০১৬) এবং সর্বশেষ ‘ইন দিস লাইফ’ (২০১৮) নামের স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে দেখা গেছে তাঁকে। তা ছাড়া তিনি একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন। তা ছাড়া টাইম ম্যাগাজিনের ভার্চ্যুয়াল রিয়েলিটির পরিচালক হিসেবেও কর্মরত আছেন তিনি।

এর আগে এলিজা অ্যালেন-ব্লিটস মার্কিন অভিনয়শিল্পী ও লেখক মারিয়া বেলোর সঙ্গে প্রেম করেছেন। ২০১৫ সালের পর থেকে অনেকবার অনেক স্থানে তাঁদের একসঙ্গে দেখা গিয়েছিল। যদিও তাঁদের বিচ্ছেদের আনুষ্ঠানিক কোনো ঘোষণা আসেনি। অন্যদিকে, যে চুমু নিয়ে মিডিয়ায় তোলপাড় চলছে, তা নিয়েও কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি এলিজা অ্যালেন-ব্লিটস বা ব্রি লারসন।

আবার ব্রি লারসনের মার্কিন সাংবাদিক ও লেখক অ্যালেক্স গ্রিনওয়াল্ডের সঙ্গে ২০১৬ সালে বাগদান হয়েছিল। ২০১৬ সালে যখন তিনি ৮৮তম একাডেমি পুরস্কারে সেরা অভিনেত্রী হিসেবে তাঁর নাম ঘোষণা করা হয়, তখন গ্রিনওয়াল্ডকে জড়িয়ে চিৎকার দিয়েছিলেন। আর অস্কার হাতে বলেছিলেন, ‘জ্যাকব ট্রেম্বলে (কানাডীয় শিশুশিল্পী, ‘রুম’ ছবির জ্যাক), যে বড় পর্দায় আমার সঙ্গী হিসেবে আমাকে মা করে তুলেছিল আর অ্যালেক্স গ্রিনওয়াল্ড, আমার জীবনের সত্যিকারের সঙ্গী, তোমাদের ভালোবাসি।’

কিন্তু সেই বাগদান বিয়ে পর্যন্ত গড়ানোর আগেই ভেঙে যায় সেই সম্পর্ক।

Leave a Reply


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: