,


বগুড়ায় বিদ্যালয়ের সিলিং ফ্যান খুলে পড়ে গুরুত্বর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ২ শিক্ষার্থী

বগুড়ায় বিদ্যালয়ের সিলিং ফ্যান খুলে পড়ে গুরুত্বর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ২ শিক্ষার্থী

মোঃ ফাহিম আহম্মেদ রিয়াদ, বগুড়াঃ বগুড়ার কাহালু উপজেলার নারহট্ট ইউনিয়নের নিশিন্তপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে শ্রেণী কক্ষের সিলিং ফ্যান খুলে পড়ে দশম শ্রেণীর ছাত্রী আকতার বানু (১৪) ও রুহি আকতার (১৪) গুরুত্বর আহত হয়েছেন। আহত ২ ছাত্রীকে নিকটস্থ কাহালু ও দুপচাঁচিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনয় অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সহ ম্যানেজিং কমিটিকে দায়ী করেছেন এলাকাবাসী, অভিভাবক ও ছাত্র-ছাত্রীরা।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেনীর অন্যান্য শিক্ষার্থীদের সাথে আকতার বানু ও রুহি আকতার সোমবার সকালে শ্রেনীর কক্ষে ক্লাশ শুরু হওয়ার পূর্বে প্রবেশ করে। সকাল পৌনে ১০টার দিকে হঠাৎ শ্রেনী কক্ষের একটি সিলিং ফ্যান স্থানচ্যুত হয়ে মাথার উপরে পড়লে ১০ম শ্রেনীর ঐ দুই ছাত্রী গুরুত্বর আহত হলে তাদেরকে তাৎক্ষণিক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ঐ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেনী ছাত্র সজিব জানান, এর আগেও শ্রেনী কক্ষের একটি সিলিং ফ্যান খুলে পড়েছিল তবে সেবার কেউ আহত হয়নি।

এ সময় অন্যান্য বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ক্ষোভের সাথে জানান, বিদ্যালয়ে শ্রেনী কক্ষের প্রতিটি সিলিং ফ্যান হালকা গুনা তার ব্যবহার করে নাম মাত্র বেধেঁ চালানো হচ্ছে। হালকা গুনা তারে মরিচা ধরে নষ্ট হয়ে ফ্যান খুলে পড়ে শিক্ষার্থীরা আহত হয়েছে। এ জন্য তারা বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির চরম গাফতলিকে দায়ী করেন।

নিশিন্তপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আহত ছাত্রীদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। অত্র বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মীর হবিবর রহমান এর সাথে কথা বলা হলে তিনি গাফতলির বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, এবার থেকে শ্রেনী কক্ষের প্রতিটি সিলিং ফ্যান ভালো ভাবে লাগানো হবে। এ ব্যাপারে কাহালু উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার শফিকুল ইসলাম এর সাথে কথা বলা হলে তিনি বলেন, বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিষয়টি আমাকে অবগত করেছেন এবং আমি ছাত্রীদের চিকিৎসার খোঁজ খবর নিয়েছি।

Leave a Reply


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: