,


অনুমতি ছাড়াই জানাউড়া স্কুলের গাছ বিক্রি

অনুমতি ছাড়াই জানাউড়া স্কুলের গাছ বিক্রি

বিক্রমজিত বর্ধন, মৌলভীবাজারঃ  মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের সিন্দুরখাঁন ইউনিয়নের জানাউড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গাছ উপজেলা প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই দুটি গাছ কেটে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে স্কুল কর্তৃপক্ষকে কারণ দর্শানো নোটিশ প্রদান করা হবে বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।
জানাউরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, স্কুলের দুটি গাছ কেটে সীমানা প্রাচীরের মাঠে সাজিয়ে রাখা হয়েছে। ১টি গাছের কিছু অংশ স্কুলের পাশের ধান খেতে পড়ে রয়েছে।
জানাউড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অভিভাবক কমিটির সভাপতি আবু মিয়াসহ স্থানীয় এলাকাবাসী বলেন, প্রধান শিক্ষিকা আমাদের সাথে কোন আলোচনা না করেই হেলাল মিয়া নামের একজনের কাছে গাছগুলো বিক্রি করে দেন। ইতোমধ্যে হেলাল মিয়া দুটি গাছ কেটে ফেলেছেন। তারা বলেন, এই গাছগুলো স্কুলের সম্পত্তি, আমরা যখন এই স্কুলে পড়তাম তখন গাছগুলো লাগানো হয়েছিলো।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা কানিজ ফাতেমা বলেন, আমি এই গাছ কাটার সাথে জড়িত নই। এই বিষয়ে আমার কোন জানা নেই। কারা গাছ কিনলো, কে বেচলো আমি কিছুই জানি না। আর গাছগুলোতে পোকা ছিলো। গাছ কাটায় ভালোই হয়েছে।
গাছের ক্রেতা হেলাল মিয়া বলেন, গাছগুলো আমি গত দুইমাস আগে ক্রয় করি। কাল আমি গাছগুলো কেটেছি। গাছের বিষয়ে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সহ সভাপতি আব্দুল আলী ও প্রধান শিক্ষকের জানা আছে। আমি তাদের কাছে গাছের দাম বাবদ ছয় হাজার টাকা দিয়েছি।
স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটির সহ সভাপতি আব্দুল আলী বলেন, আমি প্রধান শিক্ষকের সাথে আলোচনা করেই গাছ বিক্রয় করেছি। তবে উপজেলা কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া গাছ কাটা আমাদের ঠিক হয় নি। আমরা মূলত স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্ত নিয়েই গাছ কেটেছিলাম।
শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, স্কুলের এই গাছ কাটার বিষয়ে আমাদের কাছ থেকে কোন অনুমতি নেয়া হয়নি। আমি খবর পাওয়ামাত্রই সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তাকে সেখানে পাঠিয়েছি। গাছ কাটার ব্যাপারে স্কুল কতৃপক্ষ কোন উত্তর দিতে পারেনি। যে কারণে আমরা স্কুল কর্তৃপক্ষকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কাটা গাছগুলো এখন প্রধান শিক্ষকের জিম্মায় থাকবে।

Leave a Reply


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: